ঢাকাSaturday , 16 March 2024
  1. Environment
  2. National
  3. অপরাধ
  4. অর্থনীতি
  5. আইন-আদালত
  6. আন্তর্জাতিক
  7. খেলাধুলা
  8. গণমাধ্যম
  9. জাতীয়
  10. প্রধান খবর
  11. বিনোদন
  12. ব্যবসা
  13. মতামত
  14. রাজনীতি
  15. শিক্ষাঙ্গন

শীতলক্ষ্যার বালু খেকো

Link Copied!

রাতের আঁধারে নারায়ণগঞ্জ জেলার বুক চিরে বয়ে চলা শীতলক্ষ্যা নদী ও পাড়রে মাটি গভীর রাতে কেটে বিক্রি করছে একটি চক্র। নদীর তীর থেকে কোথাও ২০ ফুট, কোথাও ৩০ ফুট গভীর গর্ত করে কখনও বাল্কহেড আবার কখনও ড্রাম ট্রাকে করে মাটি নিয়ে বিক্রি করা হচ্ছে বিভিন্ন ইটভাটায়। নদীর তীর থেকে মাটিকাটা বন্ধে উপজেলা প্রশাসন দৃষ্টি আকর্ষণ করছেন এলাকাবাসী। তবে নদীর তীরের অবৈধ মাটিকাটা বন্ধ করতে প্রয়োজনে রাতেও অভিযান পরিচালনার দাবী জানিয়েছেন স্থানীযরা। এদিকে অভিযোগ উঠেছে বন্দর থানা পুলিশ ও জেলা গোয়েন্দা সংস্থা বেশ কয়েকবার হানা দিলেও রহস্যজনক কারনে নিরব ভূমিকা পালন করছেন।
এই দৃশ্য দেখা যায় নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের ২৫ নং ওয়ার্ডস্থ বন্দর থানাধীন সোমবারিয়া বাজার ও লক্ষনখোলা এবং একই থানাধীন ২৪নং ওয়ার্ডস্থ বক্তাকান্দী আকিজ গ্রুপ সংলগ্ন শীতলক্ষ্যা পাড় এলাকায়।
এলাকাবাসী বলছেন, উত্তর লক্ষনখোলা এলাকার জনৈক ফরিদ নামের একজন লোক নিজেকে নদীর মাটি কাটার ইজারাদার ঘোষণা দিয়ে প্রকাশ্যে মাটি বিক্রি করছে। এ পর্যন্ত ফরিদ অন্তত পক্ষে কোটি টাকার বেশি মুল্যের নদীর মাটি অবৈধভাবে বিভিন্ন ইটভাটায় বিক্রি করেছেন। ফরিদকে দ্রুত আইনের আওতায় এনে নদীর মাটি বিক্রির টাকা উদ্ধার সহ কঠোর ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানান তারা। এমনকি এই ফরিদ নিজেকে নাসিক মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভীর আস্থাভাজন লোক পরিচয় দিয়ে প্রভাব বিস্তার করছে।
এ বিষয়ে বিআইডব্লিউটিএর যুগ্ম পরিচালক মোঃ শহীদুল্লাহ বলেন, আমরা সেখানে শীঘ্রই অভিযান পরিচালনা করবো‌। তবে এরপর কোনো ব্যাবস্থা নিতে দেখা যায় নি।
এদিকে স্থানীয় বন্দর থানার ওসি গোলাম মোস্তফা জানিয়েছেন, এখনই মাটি কাঁটা চক্রের বিরুদ্ধে ব্যাবস্থা নেয়া হবে। এরপর আকবর নামের একজনকে ধরে কিছু টাকার বিনিময়ে আবার ছেড়ে দেওয়ার অভিযোগ রয়েছে।
এদিকে মাটি কাটা চক্রের মূলহোতা ফরিদ জানান, বিআইডব্লিউটিএর কাছ থেকে মাটি কাটার অনুমতি নেয়া হয়েছে এবং থানা পুলিশ, ডিবি পুলিশ সহ সকল দপ্তরে চিঠি দিয়ে মাটি কাটা হচ্ছে।

বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।